পাঁচ টাকায় সারাদিন ওয়াইফাই ইন্টারনেট দেবে ‘বন্টন’ অ্যাপ

“বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুদের সাথে বসে হঠাৎ একদিন ইন্টারনেট দরকার পড়লো। কিন্তু মোবাইল ডাটা ছিলনা। ওয়াইফাই লিস্ট খোলার পর দেখা গেলো আশপাশে অনেকগুলো ওয়াইফাইয়ের  নাম দেখা যাচ্ছে কিন্তু সবক’টাই রেস্ট্রিকটেড। তখন মনে হচ্ছিলো, কেউ যদি তার পাসওয়ার্ডটা শেয়ার করতো তাহলেইতো কাজটা সেরে ফেলতে পারতাম। ঠিক এই ভাবনাটা থেকেই আমাদের ‘বণ্টন’ অ্যাপ  এর যাত্রা শুরু।” – কথাগুলো বলছিলেন অত্যন্ত সময়োপযোগী এক উদ্যোগের কর্ণধার সামিহা তাহসিন।

বণ্টন কী? সোজা কথায় এটি একটি ইন্টারনেট শেয়ারিং অ্যাপ। বাংলাদেশে মোবাইল ইন্টারনেট এখনো যথেষ্ট ব্যয়বহুল। আর সব জায়গায় ওয়াইফাইও সহজলভ্য নয়। অথচ ব্যস্ত জীবনে প্রতিনিয়ত ইন্টারনেটের প্রয়োজন হয়। পথের মধ্যে দাঁড়িয়ে হঠাৎ একটা রাইড শেয়ারিং এপ, এ্যাম্বুলেন্স বা কোন জরুরি তথ্যের দরকার পড়লেও অনেকসময় তা পাওয়া কঠিন হয়ে যায় ইন্টারনেট সংযোগের বাইরে থাকার কারণে। এরকম অবস্থায় সমাধানের পথ হবে ‘বণ্টন’। বণ্টন অ্যাপের মাধ্যমে যে কেউ যে কোন জায়গায় খুব সহজেই মাত্র পাঁচ টাকায় সারাদিন ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন।

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এবং প্রকৌশল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সামিহা তাহসিন এবং ওমরান জামান দুই বন্ধু। বণ্টন এর কাজ শুরুর আগে তারা জরিপ করে দেখে যে মোবাইল ডাটার চড়া মূল্য এবং ওয়াইফাই সংযোগের অপ্রতুলতা রয়েছে পুরো দেশজুড়ে।

সামিহা বলেন, “পরের ধাপে আমরা বিনিয়োগকারী খুঁজলাম আর সেজন্য আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি প্রতিযোগিতায় অংশ নিলাম। সেখানে আমাদের ওয়াইফাই শেয়ারিং এর ভাবনাটা অনেক প্রশংসা কুড়ালো। এরপর ব্র্যাক এর সেন্টার অফ এন্ট্রাপ্রেনিউর এন্ড ডেভেলপমেন্ট এর একটা  ইনকিউবেশন প্রোগ্রামের আওতায় আমরা আমাদের আইডিয়াকে আরো সম্প্রসারণের সুযোগ পাই। এক পর্যায়ে বিনিয়োগকারীও পেয়ে গেলাম।”

বর্তমানে মহাখালীর ওয়্যারলেস গেট পার্কে এবং গ্রিনরোডের ক্রিসেন্ট রোড এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে বণ্টনের সেবা চালু আছে। আগামী তিন মাসের মধ্যে বণ্টন এলাকাভিত্তিক কাজ শুরু করবে। হোম ওয়াইফাই শেয়ার করে যে কেউ হতে পারবেন হোস্ট। কেউ যেকোনো এলাকায় এসে ওয়াইফাই নেটওয়ার্কে সংযুক্ত হতে চাইলে বণ্টন অ্যাপে লগইন করলে সবচেয়ে কাছের ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের সাথে তাকে সংযুক্ত করে দেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে হোস্ট পাবেন প্রতি সংযোগের জন্য পাঁচ টাকা করে।

২০১৯ সালে শুরু হওয়া এ উদ্যোগের পেছনে  বর্তমানে ৭ জনের একটি দল নিয়ে কাজ করছেন সামিহা-ওমরান। ব্র্যান্ডিং, মার্কেটিং এবং টেকনিক্যাল  বিষয়সহ এখনো অনেকদূর যাওয়া বাকি। কিন্তু এসব কিছুকেই কাজের অংশ হিসেবে নিয়ে সব প্রতিকূলতা ছাড়িয়ে নিজেদের ভাবনার ফসলকে বণ্টন করবেন সবার মাঝে- সেই স্বপ্নই দেখেন বণ্টনের উদ্যোক্তারা।

বন্টন-এর ওয়েবসাইট: www.bonton.app
বন্টন-এর ফেইসবুক পেইজ ভিজিট করতে ক্লিক করুন এখানে: বন্টন

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য