চোখের রং যা জানিয়ে দেয়

কথায় আছে “চোখ যে মনের কথা বলে”। আসলেই তাই। মানুষভেদে চোখের রং ভিন্ন হয়ে থাকে। চোখের রংয়ের সাথে সাথে পাল্টে যায় মানুষের সৌন্দর্য। এছাড়াও বেশ কয়েকটি গবেষণায় জানা যায় মানুষের চোখের মণির রং এর সাথে চরিত্রের অনেকটা মিল থাকে৷ সুইডেনের ও্যরেব্রো বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণা থেকেও এসব তথ্য বেরিয়ে এসেছে৷ সে সমীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন মোট ৪০০ জন মানুষ এবং তাঁদের চোখের মণির রং ছিলো বিভিন্ন রংয়ের৷ চলুন দেখে নেয়া যাক কোন চোখের মানুষ কোন চরিত্রের অধিকারী হয়ে থাকে-

১. বাদামী চোখ: বাদামী রংয়ের চোখ যাদের, তারা খুব বন্ধুত্বপূর্ণ এবং সংবেদনশীল হয়ে থাকেন৷ আর অন্যদের কাছে টানার বিশেষ ক্ষমতা রয়েছে এদের৷ আর পেশার ক্ষেত্রে খানিকটা জেদি স্বভাবের যদিও টিমকে ভালোভাবেই চালিয়ে নেওয়ার যোগ্যতা রাখেন৷

২. নীল চোখ: চোখের মণি সাগর বা আকাশের মতো নীল-যেমনই হোকনা কেন, নীল নয়নারা দেখতে সুন্দর তাতে কোনো সন্দেহ নেই৷ তা না হলে কি আর এদের নিয়ে এতো গান কবিতা হয়? তবে চোখের রং যাঁদের নীল তাঁরা নাকি শিশু বয়স থেকেই একটু লাজুক স্বভাবের হয়ে থাকে এবং অল্পতেই দুঃখ পায় বা কেঁদে ফেলে৷ তাছাড়া এক পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে যে, তাদের প্রায়ই অ্যালকোহলজনিত সমস্যা হয়ে থাকে৷

৩. সবুজ চোখ: শতকরা মাত্র চার ভাগ মানুষের চোখের রং হয়ে থাকে সবুজ৷ আর সে কারণেই হয়তো সকলের পছন্দ সবুজ চোখের মণি৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অফ কুইন্সল্যান্ড-এর করা এক সমীক্ষা থেকে বেরিয়ে এসেছে, যে চোখ যাদের সবুজ তারা খুব সৃজনশীল, স্থিতিশীল ও বাস্তববাদী হয়ে থাকেন এবং জীবনে চলার পথে যে কোনো সমস্যাকে সহজে মোকাবিলা করতে পারেন৷

৪. ধূসর চোখ: এই চোখের মানুষ সাধারণত হয়ে থাকে খুবই ভদ্র এবং কোনো ধরনের বাড়াবাড়ি পছন্দ করেনা৷ তবে অন্যদের পক্ষে তাঁদের মন বোঝা বেশ কঠিন হয়ে থাকে৷ তবে পেশাগত জীবনে তাঁরা বেশ শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে পারেন এবং টিমের সাথে মিলেমিশে কাজ করতেও ভালোবাসেন৷

এছাড়াও নেদারল্যান্ডসের রটারডামে করা এক সমীক্ষা থেকে জানা যায়, যে পুরুষের চোখের রং নীল, সে নাকি সঙ্গিনী পেতে নীল নয়নাকেই খোঁজেন৷ তবে নীল নয়নাদের কিন্তু এ ব্যাপারে বিশেষ কোনো পছন্দ নেই৷

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য