বান্দরবানে পর্যটকদের জন্য আচরণবিধি প্রণয়নের দাবি তুললেন স্থানীয়রা

‘সাংস্কৃতিকভাবে সংবেদনশীল, পরিবেশ ও নারীবান্ধব পর্যটন’ বিষয়ক আলোচনা সভার একাংশ।

দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে বান্দরবানে বেড়াতে আসা পর্যটকদের জন্য আচরণবিধি প্রণয়নের দাবি তুলেছেন জেলার স্থানীয়রা। একই সাথে পর্যটকদেরকে স্থানীয় সংস্কৃতি, জীবনধারা, প্রকৃতি ও পরিবেশের সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের গুরুত্ব দেবার সুপারিশ করা হয়।

গত ২৮ জুন মঙ্গলবার উইমেন রিসোর্স নেটওয়ার্ক এর উদ্যোগে বান্দরবান প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে ‘সাংস্কৃতিকভাবে সংবেদনশীল, পরিবেশ ও নারীবান্ধব পর্যটন’ শীর্ষক আলোচনা সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। উইমেন রিসোর্স নেটওয়ার্ক এর সাবেক জেলা সমন্বয়কারী ডনাইপ্রু নেলী’র সভাপতিত্বে সভা শুরু হবার আগে র‌্যালিতে অংশ নেন বান্দরবান সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম জাহাঙ্গীর।

সভায় সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান য়ইসাপ্রু মারমা বলেন, জেলার বিভিন্ন গ্রামের পাশে কোন ঝর্না বা খালের সৌন্দর্য দেখতে যখন অনেক মানুষ যাতায়াত শুরু করে, তখন গ্রামের মানুষদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হয়। অনেক পর্যটকরা স্থানীয়দের সাথে অভদ্রোচিত আচরণ করে থাকেন। তাদের পোশাক-আশাক, ভাষা নিয়ে বিদ্রুপ করেন। এসব বিষয়ে সচেনতনতা জরুরি। তিনি জানান, পর্যটকদের জন্য আচরণবিধি প্রণীত হলে এসব সমস্যা কমে আসবে এবং স্থানীয়রাও পর্যটন শিল্পের অগ্রগতিতে অংশ নিতে পারবে।

অনন্য কল্যাণ সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক ডনাইপ্রু বলেন, যেসব পাড়ার আশেপাশে পর্যটন স্থান রয়েছে, সেসব পাড়ায় স্থানীয় একটা করে কমিটি করা দরকার। যাতে প্রকৃতি, পরিবেশ সুরক্ষায় তারা ভূমিকা রাখতে পারে। আচরণবিধি প্রণয়ন করে পর্যটন স্থাপনাগুলোতে সাইনবোর্ড স্থাপনের মাধ্যমে সেগুলো প্রচার করা যেতে পারে। পাড়াগুলোতে পর্যটকদের দ্বারা শব্দদূষণ, পরিবেশ দূষণসহ সৃষ্ট নানা সমস্যার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষগুলোর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

উইমেন রিসোর্স নেটওয়ার্ক এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এডভোকেট মাধবী মার্মা বলেন, আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলোতে ঘুরতে গিয়ে দেখেছি, তারা পর্যটন স্থানগুলোর পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও শিষ্টাচারের ব্যাপারে অনেক এগিয়ে আছে। আমাদেরকেও এসব ব্যাপারে নিজেদের মানসিকতায় পরিবর্তন আনতে হবে।

সভায় ট্যুরিস্ট পুলিশ এর ইন্সপেক্টর মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ট্যুরিস্ট পুলিশ পর্যটন সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আছে। কোনো ব্যবসায়ী বা অন্য কেউ যদি পর্যটকদের সাথে অসদাচরণ করে তাহলে আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করি। পাশাপাশি পর্যটকরাও যদি কোথাও আইনবহির্ভূত আচরণ করেন, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক মিনারুল হক, বোমাং সার্কেল হেডম্যান এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক টি মং প্রু, হেডম্যান উনিহ্লা, আবাসিক হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, প্রথম আলোর বান্দরবান প্রতিনিধি বুদ্ধজ্যোতি চাকমা, তারুম ডেভেলাপমেন্ট অর্গানাইজেশনের কর্মকর্তা চৈতী ত্রিপুরা, বাংলাদেশ মারমা স্টুডেন্টস কাউন্সিল, ম্রো স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন, ট্যুর গাইড সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিরা আলোচনায় অংশ নেন।

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য